নোয়াখালী সদরের সড়কটি পাকাকরণে ধর্মপুরবাসীর 'ধর্মের দোহাই'
২০ এপ্রিল, ২০২১ ১১:১৩ অপরাহ্ন

  

নোয়াখালী সদরের সড়কটি পাকাকরণে ধর্মপুরবাসীর 'ধর্মের দোহাই'

ইকবাল হোসেন মজনু, নোয়াখালী ব্যুরো প্রধান
০৮-০৪-২০২১ ০১:৫৮ পূর্বাহ্ন
নোয়াখালী সদরের সড়কটি পাকাকরণে ধর্মপুরবাসীর 'ধর্মের দোহাই'

নোয়াখালী সদর উপজেলার ধর্মপুরের হাফেজিয়া নগর সড়কটি পাকাকরণের দাবিতে বিভিন্ন দপ্তরে ঘুরতে ঘুরতে এলাকাবাসীরা হাঁপিয়ে ওঠেছে। এবার তারা ধর্মের দোহাই দিয়ে বলেছে, 'অন্তত রাস্তাটি পাকা করে আমাদের মুক্তি দিন'।

এলাকাবাসীরা জানায়, দীর্ঘদিন ধরে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়া রাস্তাটি পাকাকরণের জন্য ধর্মপুর ইউনিয়ন পরিষদ ও স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর অফিসের কাছে বার বার আবেদন করেও ফল হয়নি। এতে চরম ভোগান্তি পোহাচ্ছেন এই সড়কে দৈনন্দিন চলাচলকারী হাজার হাজার মানুষ।

সরজমিনে দেখা গেছে, মধ্য ধর্মপুরে সোনাপুর চরবাটা সড়কের সংযোগ থেকে পূর্ব দিকে দুই কিলোমিটার দীর্ঘ এই কাঁচা সড়কে সবসময় হাঁটু পর্যন্ত ধুলা থাকে। বর্তমানে এ রাস্তায় হেঁটে চলাচল করতে কয়েক ইঞ্চি পা দেবে যায়।

এলাকাবাসীরা জানান, বর্ষা মৌসুমে পুরো অংশজুড়ে কাদায় পরিপূর্ণ থাকে। তখন এ পথে চলাচল দুরূহ হয়ে পড়ে। এবার অন্তত রাস্তাটি পাকা করে এলাকাবাসীকে মুক্তি দেয়ার দাবি তাদের।

হাফেজিয়া নগরের মো. সেলিম মিয়া, কাঁচা রাস্তাটি নোয়াখালীর সোনাপুর-চরবাটা সড়কের একদম পাশেই অবস্থিত। এ রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন কবিরহাট, কোম্পানীগঞ্জ, সুবর্ণচর, রামগতির পথে হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে থাকেন।

এ গ্রামের শত শত শিক্ষার্থী রাস্তাটি দিয়ে প্রতিদিন জেলার বিভিন্ন স্থানের স্কুল-কলেজ ও মাদরাসায় যায়। শুষ্ক মৌসুমে এই রাস্তায় একহাঁটু ধুলা আর বর্ষাকালে একহাঁটু কাদা জমে থাকে। অসংখ্য গর্তও রয়েছে। 

এমতাবস্থায় এ রাস্তায় যাতায়াতকারী শিক্ষার্থীসহ স্থানীয়দের দুর্ভোগ চরমে ওঠেছে। এছাড়া গ্রামগুলোর উৎপাদিত কৃষিপণ্য জেলার নানা হাটবাজারে পরিবহনের জন্য রাস্তাটি ব্যবহৃত হলেও পরিবহন খরচ দিতে হয় কয়েক গুণ।

ধর্মপুর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান ছিদ্দিকুর রহমান সাবু বলেন, জনগণের দুর্ভোগ তিনি দেখেছেন। ইতোমধ্যে রাস্তাটি পাকাকরণের জন্যে উপজেলা পরিষদকে বিশেষভাবে অনুরোধও করেছেন।

নোয়াখালী স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রকৌশলী আমিরুল ইসলাম জানান, রাস্তাটি গ্রামীণ-৩ প্রকল্পের তালিকায় নাম পাঠানো হয়েছে। এ রাস্তার নামে আইডিও খোলা হয়েছে। তবে বরাদ্দ এলে কাজটি করা যাবে।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারহানা জাহান উপমা বলেন, ইতোমধ্যে তিনি সড়কের দুরবস্থার কথা শুনেছেন। দ্রুত রাস্তাটি পাকাকরণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে উল্লেখ করেন।


ইকবাল হোসেন মজনু, নোয়াখালী ব্যুরো প্রধান ০৮-০৪-২০২১ ০১:৫৮ পূর্বাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে
এবং 38 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
Loading...
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত

  

  ঠিকানা :   অনামিকা কনকর্ড টাওয়ার (তৃতীয় তলা),
বেগম রোকেয়া স্মরনী, শেওড়াপাড়া, মিরপুর, ঢাকা- ১২১৬
  মোবাইল :   ০১৭৭৯-১১৭৭৪৪
  ইমেল :   [email protected]