মাইজদী হাউজিংয়ে পৌনে ৫ কোটি টাকার সড়ক নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ
২৩ জুন, ২০২১ ০৬:২৯ অপরাহ্ন

  

মাইজদী হাউজিংয়ে পৌনে ৫ কোটি টাকার সড়ক নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

ইকবাল হোসেন মজনু, নোয়াখালী ব্যুরো প্রধান
১০-০৫-২০২১ ১২:১৩ পূর্বাহ্ন
মাইজদী হাউজিংয়ে পৌনে ৫ কোটি টাকার সড়ক নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

নোয়াখালীর মাইজদী হাউজিং এস্টেটে জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষের অধীনে পৌনে পাঁচ কোটি টাকার সড়ক উন্নয়ন কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী।

নোয়াখালী পৌরসভার মেয়র মো. শহীদুল্লাহ খান সোহেল ও জনৈক মো. ইসমাইলের মালিকানাধীন খান-রূপালী (জেভি) প্রতিষ্ঠান ওই কাজের ঠিকাদারি পেয়েছেন।

স্থানীয় অধিবাসীরা জানান, ক্ষমতাসীন দলের দোহাই দিয়ে ঠিকাদারের লোকজন সড়কে মানহীন সামগ্রী দিয়ে নিম্নমানের কাজ করছে। প্রতিবাদ করায় ঠিকাদারের লোকজন এলাকাবাসীকে ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন।

এদিকে শনিবার (৮ মে) দুপুরে সেন্ট্রাল রোড়ে মানহীন কাজের প্রতিবাদ করে এলাকাবাসী রাস্তার নিম্নমানের সীলকোড হাত দিয়ে তুলে ফেলে। ওই সময়ের কয়েকটি ভিড়িও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। পরে প্রতিবাদকারী একজনকে ঠিকাদারের লোকজন পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

জানা গেছে, নোয়াখালী মাইজদী হাউজিং এস্টেটের সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার পাকা রাস্তা, ২৩টি কালভার্ট ও এক কিলোমিটার ড্রেনের প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে চারকোটি ৮০ লাখ টাকা। যে কাজটি খান-রূপালী (জেভি) বাস্তবায়ন করছে।

রবিবার (৯ মে) দুপুরে সরেজমিনে গেলে, মানহীন বিটুমিনসহ নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে হাউজিং এস্টেটের সেন্ট্রাল রোড়ের নির্মাণ কাজ চলছে বলে দাবি করেন এলাকাবাসী। জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের কোনো প্রতিনিধিকে সড়কে উপস্থিত পাওয়া যায়নি। বেলা ২টায় হাউজিং এস্টেটের গৃহায়ন অফিসে গিয়ে সেখানেও তালাবদ্ধ পাওয়া যায়।

জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. জামাল হোসেন বলেন, এ কাজের দায়িত্বে আমি নাই, সহকারী প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেনের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ করেন তিনি।

কিন্তু সহকারী প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেনকে বার বার ফোন দিলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।

গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষ চট্টগ্রাম বিভাগীয় নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মঈনুল হক মোতাঈদ মোবাইলে জানান, তিনি কয়েকদিন থেকে ঢাকায় অবস্থান করছেন। তবে অনিয়মের বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান।

ঠিকাদার মো. ইসমাইল বলেন, কাজটি তিনি এবং নোয়াখালী পৌরসভার মেয়র মো. শহীদুল্লাহ খান সোহেল যৌথভাবে করছেন। কাজের মান সঠিক রাখার চেষ্টা করছেন বলেও জানান তিনি।

মেয়র শহীদুল্লাহ খান সোহেল বলেন, তার মালিকানাধীন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের অধীনে যৌথভাবে কাজটির বাস্তবায়ন চলছে। তবে এতে কোন অনিয়ম হচ্ছে না বলে তিনি দাবি করেন।

সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাহেদ উদ্দিন জানান, শনিবার হাউজিংয়ের সড়ক নির্মান নিয়ে সমস্যা হয়েছিল। সেখান থেকে একজনকে ধরে পরিস্থিতি শান্ত করা হয়েছিল। তবে কাউকে আটক করা হয়নি।

নোয়াখালী জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান বলেন, অভিযোগের বিষয়টি শুনেছি। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছি।


ইকবাল হোসেন মজনু, নোয়াখালী ব্যুরো প্রধান ১০-০৫-২০২১ ১২:১৩ পূর্বাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে
এবং 516 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
Loading...
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত

  

  ঠিকানা :   অনামিকা কনকর্ড টাওয়ার (তৃতীয় তলা),
বেগম রোকেয়া স্মরনী, শেওড়াপাড়া, মিরপুর, ঢাকা- ১২১৬
  মোবাইল :   ০১৭৭৯-১১৭৭৪৪
  ইমেল :   [email protected]