ঢাকায় প্রতি চারজনে একজন মারা যান পরিবেশ দূষণে
২০ এপ্রিল, ২০২১ ১০:৫০ অপরাহ্ন

  

ঢাকায় প্রতি চারজনে একজন মারা যান পরিবেশ দূষণে

এম.এ.শাকুর, সাব এডিটর
০৭-০৪-২০২১ ০৯:২৭ অপরাহ্ন
ঢাকায় প্রতি চারজনে একজন মারা যান পরিবেশ দূষণে

ঢাকায় প্রতি চারজনে একজন পরিবেশ দূষণের কারণে মারা যান বলে জানিয়েছেন ঢাকা বিভাগের ডেপুটি কমিশনার মো. শহীদুল ইসলাম।

বুধবার (০৭ এপ্রিল) ভার্চুয়ালি ঢাকা কলিং প্রকল্পের উদ্বোধনী সভায় তিনি এ তথ্য জানান।

প্রকল্পের উদ্বোধন করে মো. শহীদুল ইসলাম বলেন, ‘ঢাকায় প্রতি চারজনে একজন মারা যান পরিবেশ দূষণের কারণে। রাষ্ট্র তার নাগরিকদের কতটা সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে তা পরিমাপের একটি মাপকাঠি হলো সেখানকার ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম।’

তিনি বলেন, ‘বিভিন্ন সিন্ডিকেটের কারণে বস্তিবাসী বিভিন্নভাবে নিগ্রহের শিকার হন। আমাদের মনে রাখতে হবে, বর্জ্যও এক ধরনের সম্পদ। তাই আমাদের বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় আরও সচেতন হতে হবে এবং একে কিভাবে পুনরায় ব্যবহার করা যায় সে বিষয়ে নজর দিতে হবে।’

তিনি ঢাকা কলিং-এর সাফল্য কামনা করে বলেন, ‘ঢাকা কলিং ফেইল করলে পুরো বস্তিবাসী অসম্মানিত হবেন।’

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য তানভীর শাকিল জয় প্রকল্পটিকে বাস্তব ও সময়োপযোগী উল্লেখ করে বলেন, ‘ঢাকার মূল চালিকাশক্তি হলো এই বস্তিবাসী। তাই তাদের জীবনমান উন্নত করলে নগরের সামগ্রিক দূষণের অবস্থারও উন্নতি হবে। বর্জ্য ব্যবস্থাপনাকে সমন্বিত উপায়ে পরিচালনা করা গেলে বস্তিবাসীর কর্মসংস্থানেরও সুযোগ সৃষ্টি হবে।

ইউএসএইড-এর অর্থায়নে কাউন্টার পার্ট ইন্টারন্যাশনালের সার্বিক সহযোগিতা ও তত্ত্বাবধানে ঢাকা কলিং প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে দুস্থ স্বাস্থ্য কেন্দ্র (ডিএসকে), কোয়ালিশন ফল আরবান পুওর (সিইউপি), বাংলাদেশ রিসোর্স সেন্টার ফর ইন্ডিজেনাস নলেজ (বারসিক) ও ইনসাইটস-এর সম্মিলিত জোট।

প্রকল্পটি জানুয়ারি ২০২১ থেকে ডিসেম্বর ২০২৩-এর মধ্যে দরিদ্র ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সাথে সমন্বিত হয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে মোল্লার বস্তি, কড়াইল বস্তি এবং দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বালুর মাঠ বস্তি ও বউবাজার বস্তিতে বর্জ্যের সমন্বিত ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করতে কাজ করবে।

বাংলাদেশে বিদ্যমান আইনের যথাযথ প্রয়োগ নিশ্চিত করতে প্রকল্পটি সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও এর অঙ্গসংগঠনগুলোর সঙ্গে কাজ করবে। পাশাপাশি প্রকল্পটি বস্তি এলাকার বাসিন্দাদের এ বিষয়ে সচেতনতা, দক্ষতা উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন ধরনের কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

ইনসাইটস-এর কারিগরি উপদেষ্টা সুমন আহসানুল ইসলাম প্রকল্পের লক্ষ্য, উদ্দেশ্য বিস্তারিতভাবে আলোচনা করেন। টিভিতে প্রচারিত এ বিষয়ক বিভিন্ন সময়ের সংবাদের কিছু চিত্র উপস্থাপন করেন। এই চিত্রগুলো থেকেই বস্তি এলাকায় সার্বিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনার বিভিন্ন চিত্র উঠে আসে।


এম.এ.শাকুর, সাব এডিটর ০৭-০৪-২০২১ ০৯:২৭ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে
এবং 43 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
Loading...
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত

  

  ঠিকানা :   অনামিকা কনকর্ড টাওয়ার (তৃতীয় তলা),
বেগম রোকেয়া স্মরনী, শেওড়াপাড়া, মিরপুর, ঢাকা- ১২১৬
  মোবাইল :   ০১৭৭৯-১১৭৭৪৪
  ইমেল :   [email protected]